Thursday, 19/10/2017 | 4:16 UTC+6
দৈনিক বাংলাদেশ

নালিতাবাড়ীতে বন্য হাতির আক্রমনে আবাদী ফসল বিনষ্ট

রাকিবুল ইসলাম রাকিব : শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় শুক্রবার রাতে বন্যহাতির পাল হঠাৎ আক্রমন করে আবাদী বোরোধান ও বেগুন ক্ষেত বিনষ্ট করেছে। গ্রামবাসী মশাল জ্বালিয়ে শেষ রাতে  তাড়া করলে হাতির দলটি ভারতীয় সীমাšেত  চলে যায়।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে   ভারতের মেঘালয় সীমান্তের বারেঙ্গাপাড়া ঝালোপাড়া  পাহাড়  থেকে ভোগাইনদীর তীর দিয়ে প্রায় অর্ধশত বন্য হাতি উপজেলার রামচন্দ্রকুড়া ইউনিয়নের  কালাকুমা গ্রামে সমতলে নেমে আসে। এসময় ওই গ্রামের কৃষক মুছা মিয়া,জহুর উদ্দিন,শাজাহান আলী,আবু সামা ও বাবু মিয়ার এক একর বোরো আবাদ ও আবু সামার ৩৩ শতক  বেগুনের খেত  খেয়ে এবং পা দিয়ে মাড়িয়ে বিনষ্ট করে ফেলেছে। এছাড়া হাতির পালটি গ্রামের প্রায় অর্ধশতাধিক নারিকেল গাছের চারা ভেঙে ফেলেছে। পরে এলাকাবাসী মশাল জ্বালিয়ে ডাক চিৎকার শুরু করলে রাত তিনটার দিকে হাতির পাল সীমান্ত পার হয়ে ভারতে অবস্থান নেয়।

কালাকুমা গ্রামের কৃষক মুছা মিয়া বলেন, আমার  ৫০ শতাাংশ জমির বোরো আবাদ খাইয়া আর পাউ দিয়া নষ্ট কইরা ফালাইছে। অহন এই খেত কাইটা গরুরে খাওয়ানো ছাড়া কোন উপায় নাই। সন্ধ্যায় হাতির পাল আবারও  হানা দিবার পায়। আবাদ রক্ষায়  গ্রামবাসী হাতির আতংকে রয়েছেন।

কালাকুমা গ্রামের আবু সামার বলেন, শুক্রবার সন্ধ্যার পরে ৪০ থাইকা ৫০টা হাতির দল আমগর গ্রামে নামে। এই সময় আমার ৩৩ শতাংশ  বাইগুনের খেত সহ এলাকার এক কুর(একর) বোরো  খেত খাইয়া ফালাইছে। পরে গ্রামবাসী সবাই মিইলা মশাল জ্বালাইয়া শেষ রাইতের দিকে হাতি তাড়াইছি।

রামচন্দ্রকুড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম খোকা বলেন,হাতি তাড়াতে মশাল জ্বালাতে রাতেই কেরোসিন তেলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। বিষয়টা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) জানানো হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তরফদার সোহেল রহমান বলেন, হাতি আক্রমণে ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি সংশ্লিষ্ট ই্উপি চেয়ারম্যান জানিয়েছেন। ক্ষয়ক্ষতির পরিমান নিরুপন করার জন্য বলা হয়েছে। বিষয়টি দেখে  সহায়তা করা হবে।

About

Comments

comments

সম্পাদক
মফিজুল ইসলাম অলি
ফুলপুর, মোবা: 01712344037

সহকারী সম্পাদক
01. আনছারুল হক রাসেল
হালুয়াঘাট, মোবা: 01750040090
02. শাহ্‌ মোঃ নাফিউল্লাহ সৈকত
ফুলপুর, মোবা: 01711129901

প্রকাশক
রাকিবুল ইসলাম রাকিব
নালিতাবাড়ী, মোবা: 01715560895

বার্তা সম্পাদক
রফিকুল ইসলাম রবি
ধোবাউড়া, মোবা: 01911415636