Thursday, 24/8/2017 | 2:55 UTC+6
দৈনিক বাংলাদেশ

ধোবাউড়া সমাজ সেবা অফিসে সাবেক দূর্নীতিবাজ অফিস সহকারী দেলোয়ার হোসেনকে কৈফিয়ত তলব করলো সমাজসেবা অধিদপ্তর ঃ

ধোবাউড়া (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি : বিভাগীয় মামলায় দূর্নীতি পরায়ণ ব্যক্তি হিসেবে প্রমাণিত ধোবাউড়া উপজেলা সমাজসেবা অফিসের সাবেক দূর্নীতিবাজ অফিস সহকারী দেলোয়ার হোসেনকে সমাজসেবা অধিদপ্তরের প্রশাসন ও অর্থ অধি শাখার প থেকে কৈফিয়ত তলব করার সংবাদ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, সম্প্রতি ধোবাউড়া উপজেলা থেকে পার্শ্ববর্তী হালুয়াঘাট উপজেলা সমাজসেবা অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার অপারেটর পদে বদলী হয় দেলোয়ার হোসেনের। দুর্নীতিবাজ দেলোয়ারের বিরুদ্ধে একের পর এক তদন্তের প্রতিবেদনের জবাব দিহীতা ও শাস্তি স্বরূপ উর্ধ্বতন কর্তৃপরে অফিস আদেশ ইতি মধ্যেই  ধোবাউড়া ও হালুয়াঘাট উপজেলা সমাজসেবা অফিস কার্যালয়ে এসেছে। হালুয়াঘাট উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আসাদুজ্জামানের অতিরিক্ত দ্বায়িত্ব পালন করার সুবাদে দেলোয়ার হোসেন ধোবাউড়া উপজেলার মতই পাশ্ববর্তী উপজেলার হালুয়াঘাটেও দুর্নীতির চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। প্রাপ্ত তথ্যসূত্রে জানাযায়,গত ১৫ জানুয়ারি ২০১৭ইং তারিখে সমাজসেবা অধিদপ্তরের প্রসাশন ও অর্থ অধিশাখা এর পরিচালক এ কে এম খায়রুল আলম স্বারিত ৪১.০১.০০০০.০১৪.২৭.০০৪.১৭.৮ স্মারক মূলে সমাজসেবা অফিস সহকারি কাম কম্পিউটার অপারেটর দেলোয়ার হোসেনকে পত্র প্রাপ্তির  কর্মদিবসের মধ্য সরকারি কর্মচারী (শৃংখলা ও আপীল) বিধিমালা,১৯৮৫ এর বিধি ৩(বি) মোতাবেক অসদাচরণের অভিযোগে কেন অভিযোক্ত করা হবে না এই মর্মে জবাব প্রদানের নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। কৈফিয়ত তলবে প্রকাশ,ধোবাউড়া প্রেসকাবের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলামের আনীত অভিযোগের ভিত্তিতে সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক (প্রতিষ্ঠান-১) হরিশ চন্দ্র বিশ্বাস এর তদন্তে প্রতিবেদনে প্রমাণিত হয় যে গত ২০১২-২০১৩,২০১৩-২০১৪,এবং২০১৪-২০১৫ অর্থ বছরে রোগী কল্যাণ সমিতির আওতায় ৫০ জন রোগীর অনুকুলে বরাদ্দকৃত ২ লক্ষ ১৩ হাজার  টাকা বিতরণে অনিয়ম পরিলতি হয়েছে এবং ২০ অক্টোবর ২০১৪ইং তারিখে ধোবাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শামছুল হক এর স্বার জাল করার বিষয়ে সম্পৃত্ততা রয়েছে তদন্তে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। এছাড়াও গত ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৬ ইং তারিখে সমাজসেবা অধিদপ্তরের যুগ্ম সচিব, পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) একেএম খায়রুল আলম ও উপ-পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) মোঃ ইকবাল হোসেন স্বারিত ৪১.০১.০০০০.০১৪.২৭.০৩৩.১৫.৫৫ (৯) স্মারক অফিস আদেশে উল্লেখ করা হয় যে,ধোবাউড়া উপজেলা ১শত ১৯ জন মুক্তিযোদ্ধার নিকট থেকে ব্যাংক হিসাব খোলার জন্য ৫ শত ২০ টাকা করে ৫৯ হাজার ৫ শত টাকা এবং ১৩ জন মুক্তিযোদ্ধার নামে গত ২৫ সেপ্টেম্বর.২০১৪ ইং তারিখে ৩ মাসের সম্মানী ভাতার টাকা ১ ল ৯৫ হাজার টাকা উত্তোলন করে ৭ মাস ২০ দিন ১৫ মে ২০১৫ ইং তারিখ পর্যন্ত অর্থ আত্মসাতের প্রচেষ্টায় প্রতারণা করে দেলোয়ার।পরে ১৩ মে ২০১৫ ইং তারিখে দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পরদিন উত্তোলিত অর্থ বিতরণ করেন দেলোয়ার। এ অপরাধের পরিপ্রেেিত ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ ইং তারিখে সরকারী কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপীল) বিধিমালা ১৯৮৫ এর ৩ (বি) ও (ডি) অনুযায়ী অসদাচারণ ও দূর্নীতি পরায়ণের দায়ে বিভাগীয় মামলা করা হয় দেলোয়ারের বিরুদ্ধে -যাহার মামলা নং- ১৭/১৫। মামলাটির অভিযোগ শুনানী কালে ১৯৮৫ এর ৩ (বি) অনুযায়ী অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় একই বিধিমালায় ৪ (২), (বি) মোতাবেক দেলোয়ার হোসেন’র বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি ২ বৎসরের জন্য স্থগিত করে মামলা নিষ্পত্তি করা হয়। উল্লেখ্য যে, উক্ত দেলোয়ারের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ দূর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) সহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে রয়েছে।

এ বিষয়ে দেলোয়ার হোসেন মুঠোফোনে বলেন, বিভাগীয় মামলায় তার ২ বৎসরের ইনক্রিমেন্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তিনি আপীল আবেদনের মাধ্যমে পুনরায় ইনক্রিমেন্ট উত্তোলন করার চেষ্টা চালাচ্ছেন এবং সার্ভিস বহিটি তাহার নিকট রয়েছে।তিনি আরও জানান কৈফিয়ত তলবের জবাব ইতিমধ্য তিনি প্রধান করেছেন । এ বিষয়ে ময়মনসিংহ সমাজসেবা উপ-পরিচালক (চলতি দ্বায়িত্ব) রাজু আহাম্মেদ মুঠোফোনে- জানায় উক্ত অফিস আদেশের অনুলিপি তিনি পেয়েছেন, আরোপিত দন্ড সার্ভিস বহিতে উল্লেখ করা হয়েছে। তিনি আরও জানান সম্প্রতি কৈফিয়ত তলবের জবাব ও প্রদান করেছে দেলোয়ার,তার বিরুদ্ধে যে সকল অভিযোগ রয়েছে তদন্তের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।

About

Comments

comments

সম্পাদক
মফিজুল ইসলাম অলি
ফুলপুর, মোবা: 01712344037

সহকারী সম্পাদক
01. আনছারুল হক রাসেল
হালুয়াঘাট, মোবা: 01750040090
02. শাহ্‌ মোঃ নাফিউল্লাহ সৈকত
ফুলপুর, মোবা: 01711129901

প্রকাশক
রাকিবুল ইসলাম রাকিব
নালিতাবাড়ী, মোবা: 01715560895

বার্তা সম্পাদক
রফিকুল ইসলাম রবি
ধোবাউড়া, মোবা: 01911415636